নাজিরপুরের মৌখালীতে হয়রানী মূলক মামলা, হামলা  নির্যাতন থেকে পরিত্রাণ চায় এলাকাবাসী

0
100

রুপসীবাংলা ৭১

পিরোজপুর জেলার নাজিরপুরের মৌখালীতে একজন আইনজীবীর হামলা, হয়রানীমূলক মামলা, নির্যাতনের হাত থেকে পরিত্রাণ পেতে এলাকাবাসী লিখিত অভিযোগ করেছেন। অভিযোগে উল্লেখ করেন, মৌখালী গ্রামের মৃত সুমন্ত কুমার ভক্তের পুত্র তাপস কুমার ভক্ত ও তার ভাড়াটিয়া লোকজন স্থানীয় শান্তি প্রিয় মানুষকে ভয়-ভীতি হুমকি প্রদর্শন ও মিথ্যা মামলা দিয়ে আসছেন। একজন আইনজীবী হওয়ায় এসব কর্মকান্ডের প্রতিকার পাচ্ছেন না তারা। ফলে হামলা, মামলা ও নির্যাতনের শিকার হয়ে এলাকাবাসী এখন চরম বিপাকে পড়েছেন।

এলাকাবাসীর অভিযোগে জানাযায়, তাপস কুমার ভক্ত জেলা সদরে বাসা ভাড়া নিয়ে একা থাকেন। কিন্তু তার গ্রামের বাড়িতে একটি ভাড়াটে বাহিনী রয়েছে। তিনি তার পৈত্রিক সম্পত্তির অংশ আমির শেখ, কালাম শেখের জামাতাসহ বিভিন্ন ব্যক্তির কাছে বিক্রি করে দিয়েছেন। অথচ তিনি মৌখালীতে ভাড়াটিয়া লোকজন দিয়ে একের পর এক অপরাধ মূলক কর্মকান্ড চালিয়ে যাচ্ছেন। তার ভাই স্বরুপ কুমার ভক্তের সম্পত্তি ভোগ দখল করার জন্য উঠে পড়ে চেষ্টা চালাচ্ছেন। সদ্য সমাপ্ত শারদীয় দুর্গা পূজা উপলক্ষে ছুটিতে তার ভাই  ঢাকা থেকে বাড়িতে আসলে তাপস কুমার ভক্ত নিজেই স্বশরীরে উপস্থিত থেকে হত্যার উদ্দেশ্যে ভাড়াটিয়া লোকজন দিয়ে তার উপর হামলা চালিয়ে রক্তাক্ত জখম করে।

এ সময় স্থানীয়রা গুরুতর আহত অবস্থায় স্বরুপ ভক্তকে উদ্ধার করে নাজিরপুর স্বাস্থ্য কমপেক্সে ভর্তি করেন। এ ঘটনায় আহতকে হাসপাতলে নিয়ে যাওয়া লোকজনকে প্রকাশ্যে হত্যা ও মামলার হুমকি দেন তাপস। এর কয়েক দিন পরেই বাগান পাহারার জন্য তৈরি করা একটি অস্থায়ী ছোট (টোঙ্গ) ঘরে আগুণ দেওয়ার সাজানো ঘটনায় অভিযোগ এনে মিথ্যা মামলা দেওয়া হয়েছে বলেও অভিযোগ উঠেছে। অভিযোগকারীরা জনান, তাপস কুমার ভক্ত এবং তার ভাড়াটিয়া লোকজন  স্থানীয় বাসিন্দা জগদীশ করাতীর পুত্র গুরুদাস করাতী, আউয়াল সরদারে পুত্র হান্নান সরদার, স্বরুপ কুমার ভক্ত (তাপস ভক্তের ছোট ভাই), শুধাংশু হালদারের পুত্র প্রদীপ হালদার, আফজাল শেখের পুত্র শহিদুল শেখ শহিদ, ধীরেন্দ্রনাথ বিশ^াসের পুত্র প্রদীপ বিশ্বাস, নিত্যানন্দ মন্ডলের পুত্র নিহার মন্ডল, পরিমল মন্ডল, মাছুম মিনা সহ আরো অনেককে মারধর করে।এ ব্যাপারে জানতে চাইলে আইনজীবী তাপস ভক্ত তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ অস্বিকার করে বলেন, প্রতিপক্ষ ক্ষতিসাধন করেছে আমি তাদের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা করেছি।  

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে