মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড কেন্দ্রীয় পঞ্চবার্ষিক জাতীয় সম্মেলন ২০২২ নির্বাচিত সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক

0
110

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ ৩১ জুলাই ২০২২ রবিবার সকাল ১১.৩০ ঘটিকায় বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদের অঙ্গ সংগঠন মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড কেন্দ্রীয় পঞ্চবার্ষিকী জাতীয় সম্মেলন ২০২২ নির্বাচিত সভাপতি মেহেদী হাসান ও সাধারণ সম্পাদক মোঃ সেলিম রেজা ধানমন্ডি ৩২ এ জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পণ প্রদান করেন। সাথে মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড কেন্দ্রীয় সাবেক নেতৃবৃন্দ, বীর মুক্তিযোদ্ধা সন্তানবৃন্দ, মিত্র বাহিনীর সদস্যদের সন্তান, ভারত হতে আগত অতিথিবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।গত ৩০ জুলাই ২০২২ ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ও ইঞ্জিনিয়ার্স ইনষ্টিটিউশন অব বাংলাদেশ ঢাকায় দুই পর্বের অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। আয়োজিত অনুষ্ঠানের প্রথম পর্ব আলোচনা সভায় , মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি মেহেদী হাসানের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মাননীয় মন্ত্রী বীর মুক্তিযোদ্ধা আ.ক.ম মোজাম্মেল হক এমপি। প্রধান বক্তা ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলির সদস্য ও বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদের প্রতিষ্ঠাকালীন সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া বীর বিক্রম।

বিশেষ অতিথি ছিলেন মুজিবনগর সরকারের গার্ড অব অনার প্রদানকারী সাব সেক্টর কমান্ডার (সেক্টর-৮) বীর মুক্তিযোদ্ধা মাহবুব উদ্দিন আহমেদ বীর বিক্রম, ঢাকা জেলা ইউনিট কমান্ড’র সাবেক কমান্ডার ও বিভাগীয় কমান্ডার্স এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব মোঃ আবু সাঈদ মিয়া, বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কেন্দ্রীয় কমান্ড কাউন্সিলের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা ডা. আব্দুস সালাম খান। অতিথি হিসেবে ছিলেন জাতীয় শ্রমিক লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ সিরাজুল ইসলাম, বাংলাদেশ-ভারত সম্প্রীতি পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা অধ্যাপক ড. মোঃ ফজলে আলী, মিত্র বাহিনীর সন্তান শ্রীমতী সুবর্ণা বন্দোপাধ্যায়। আলোচক হিসেবে ছিলেন মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড’র প্রতিষ্ঠাতা আহ্বায়ক মোঃ তাজুল ইসলাম, আমরা মুক্তিযোদ্ধার সন্তান প্রতিষ্ঠাতা আহ্বায়ক মোঃ আলমগীর হোসেন, প্রজন্ম ৭১’র প্রতিষ্ঠাতা মোঃ সাইদুর রহমানসহ বীর মুক্তিযোদ্ধবৃন্দ, কাউন্সিলর-ডেলিগেটবৃন্দ।আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি বলেন, বীর মুক্তিযোদ্ধার সন্তানদের একত্রিকরণ ও বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদের পরবর্তী ধারক ও বাহক হিসেবে বীর মুক্তিযোদ্ধার সন্তানদের উপযুক্ত হিসেবে নিজেদের তৈরী করতে হবে। প্রধান বক্তার বক্তব্যে বীর মুক্তিযোদ্ধা মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া বীর বিক্রম বলেন, আজকের এই অনুষ্ঠানে এসে আমার মুক্তিযুদ্ধের সময়কালের স্মৃতির কথা মনে পড়ছে। তোমরা নিজেদেরকে তৈরী করো, বীর মুক্তিযোদ্ধার সন্তানদের সংগঠন মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড তাদের দাবি আদায়ের ভূমিকা পালন করবে।

দ্বিতীয় পর্বে কাউন্সিল অধিবেশনে বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুস সামাদ পিন্টুকে নির্বাচন কমিশনের আহ্বায়ক এবং বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব মোঃ আবু সাঈদ মিয়া, বীর মুক্তিযোদ্ধা অধ্যাপক ড. ফজলে আলী, বীর মুক্তিযোদ্ধা অধ্যাপক ডা. আব্দুস সালাম খান, বীর মুক্তিযোদ্ধা ফরহাদ হোসেন কে সদস্য করে ৫ সদস্যের নির্বাচন কমিশন গঠন করেন। গঠিত নির্বাচন কমিশনের আহ্বায়ক বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুস সামাদ পিন্টু সভাপতির নাম প্রস্তাব করতে বললে মাহমুদ হাসান ফয়সালকে সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড রাজশাহী জেলা ‘মেহেদী হাসান’র নাম প্রস্তাব করেন, তার পক্ষে জয়পুর হাট জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ডের সভাপতি ময়না খন্দকার তা সমর্থন করলে উপস্থিত সকল কাউন্সিলরে পুর্ণাঙ্গ সমর্থনে জনাব মেহেদী হাসানকে সভাপতি নির্বাচিত করা হয়। নির্বাচন কমিশনের আহ্বায়ক জনাব বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুস সামাদ পিন্টু সাধারণ সম্পাদকের নাম প্রস্তাব করতে বললে মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড কেন্দ্রীয় সাবেক ত্রাণ ও পুনর্বাসন সম্পাদক মাকসুদা সুলতানা ঐক্য মোঃ ‘সেলিম রেজা’র নাম প্রস্তাব করলে মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান সোনালী ব্যাংক প্রাতিষ্ঠানিক ইউনিট কমান্ড এর সভাপতি আব্দুর রায়হান তা সমর্থন করলে উপস্থিত কাউন্সিলরদের পুর্ণাঙ্গ সমর্থনে মোঃ সেলিম রেজাকে সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত করা হয়। নির্বাচন কমিশনের আহ্বায়ক বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুস সামাদ পিন্টু ১৭১ সদস্যের কেন্দ্রীয় পুর্নাঙ্গ কমিটি গঠনের প্রথম পর্যায়ে সভাপতি/সাধারণ সম্পাদক নির্বাচন করে বাকী ১৬৯ জনের দায়িত্ব সভাপতি/সাধারণ সম্পাদকের ওপর দায়িত্ব প্রদান ও হস্তান্তর করলে উপস্থিত কাউন্সিলরবৃন্দ সর্বসম্মতি জ্ঞাপন করেন। জাতীয় সম্মেলন ২০২০ বাস্তবায়ন কমিটির সাংস্কৃতিক উপ-কমিটির আহ্বায়ক ও মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড কেন্দ্রীয় কমিটির সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক আসলাম সিকদার নয়নের পরিচালনায় ভারতীয় মিত্র বাহিনীর সদস্যদের সন্তান সুপর্ণা বন্দপধ্যায়ের সাথে আগত আবৃত্তি শিল্পী রতি চক্রবর্তী, সুক্লাদি বাংলাদেশের শিল্পী আসলাম সিকদার, রিন্টু ও তার সন্তান গান, নৃত্য ও কবিতা পরিবেশনের মাধ্যমে মনোজ্ঞা সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে