আল-মারজান বিল্ডার্স লিঃ এর প্রতারণা এবং মাহামান্য সুপ্রীম কোর্টের আদেশ অবমাননা করে জাতীয় গৃহায়ন কর্তৃপক্ষের নির্মাণ কাজ চলামান রাখার বিরুদ্ধে সাংবাদ সম্মেলন

0
130

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ নবাব খাজা ইকবাল আহসান উল্লাহ নামে একজন প্রতারক ভুয়া নবাব এর মাধ্যমে আল-মারজান বিল্ডার্স নামে প্রতারণার বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।১৬ জুলাই ২০২২ রবিবার সকাল ১০.০০ টায় ঢাকা জাতীয় প্রেসক্লাবে আকরাম খাঁ হলে এ  সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ ও এবং সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন আবুল কালাম আনসারী জামাল,অফিসিয়াল মোতাওয়াল্লী,আইনউদ্দিন হায়দার ও ফয়জুন্নেসা ওয়াক্ফ এসেস্ট,ই.সি.নং-৪১১/সি,ঢাকা।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য থেকে জানা যায়-নবাব খাজা ইকবার আহসান উল্লা নামে একজন প্রতারক মহামান্য সুপ্রীম কোর্টের আপিল আদালতে মোতাওয়াল্লী সংক্রান্ত দুটি মামলার স্টে ও স্টাটাস-কো আদেশ থাকাবস্থায় মাত্র ১৫দিনের জন্য আইনউদ্দিন হায়দার ও ফয়জুন্নেসা ওয়াক্ফ স্টেট (ই.সি নং-৪১১/সি) এর মোতাওয়াল্লীর রায়প্রাপ্ত হয়ে (পরে মহামান্য সুপ্রীম কোর্টের আদেশে স্থগিত হওয়া সত্বেও) এখন  তা প্রচার ও তাঁকে পূজি করে জনসাধারণের সাথে প্রতারণামূল্রক কর্মকান্ড চালাচ্ছে ।কথিত নবাব খাজা ইকবাল আহসান উল্লাহ আল-মারজান বিল্ডার্স লিঃ নামে একটি প্রতিষ্ঠানের কথিত চেয়ারম্যান আলহাজ্ব হাফেস হোসাইন আহাম্মদ- কে সমন্বয়কারী নিয়োগ দিয়ে জনগণের কাছে অত্যান্ত স্বপ্লমূলে ও সহজ শর্তে অকে অবৈধ ও প্রতারণার মাধ্যমে ওয়াক্ফ সম্পত্তি বিক্রি ও লিজ প্রদানের জন্য বিভিন্নভাবে প্রচার চালাচ্ছে এবং গ্রহক আকৃষ্ট করার জন্য আকর্ষষনীয় শর্ততযুক্ত প্রচার পত্র বিতরণ করছে।

“নবাব এস্টেট” এবং “ওযাক্ফ এস্টেট” এর সমন্বয়কার হলেনঃ জনাব আলহাজ্ব হাফেস হোসাইন আহম্মেদ (চেয়ারম্যান,আল-মারজান বিল্ডার্স লিমিটেড)অত্র নাবব এস্টেটের সম্পত্তি দুইভাবে বিভক্ত। ক. একাংশ ভূমি সংস্কার বোর্ড ও ভূমি মন্ত্রণালয়ের অধীনে, খ.আরেকাংশ ওয়াক্ফ বোর্ডড যা ধর্মম মন্ত্রণালয়ের অধীনে। উল্লেখিত সকল মন্ত্রণালয়ের ভূমি মোতাওয়াল্লী স্যারের অনুমোদক্রমে ৯৯ বছরের জন্র রজি দেয়া হবে মর্মে ঘোষণা করা হয়।বাংলাদেশের যে কোন বৈধ নাগরিক,কোম্পানী অথবা সমবায়  সমিতির নামে লীজ দেওয়া যাবে। লীজকৃত ভুমি রাজউক ও গৃহায়নের নিয়মানুযায়ী ওয়াক্ফ ও বিক্রি করা যাবে”। আরও প্রচার করেন যে, নবাব ও ওয়াক্ফ এস্টেট স্থায়ী লীজ বন্দোবস্ত দেওয়া যাবে মর্মে লীজকৃত ভূমির মূল্য যাচাই বাছাই সাপেক্ষে স্থানীয় বাজার মূল্যের ৫০% হতে ৭০% ভিত্তিতে প্রতি শাতাংশে/কাঠা/বিঘা/একর মূল্য নির্ধারণ। চুক্তিপত্র সম্পাদনকালে স্থায়ী লিজ ভূমির মোট মূল্যের ৩০% টাকা /পে-অর্ডার আল-মারজান বিল্ডার্স লিঃ এর বরারব প্রদান করে গ্রহিতা প্রাপ্তি রশিদ গ্রহন করিবেন।

কথিত নবাব খাজা ইকবাল আহসান উল্লাহর বেশ-ভূষা,নানা উপাধি ও কথিত ডিগ্রীতে সাধারণ মানুষকে আকৃষ্ট করার উপাদাদন বিদ্যমান। ফলে সাধারণ মানুষ প্রতারণার শিকার ও ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে। তারা নানা কার্মকান্ডে কখনও নিজেকে আলনউদ্দিন হাযদার ও ফয়জুন্নেসা ওয়াকফ এস্টেট মোতাওয়াল্লী দাবি করে চলছে। কিন্তু দেশের সর্বোচ্চ আদালত থেকে তাকে মোতাওয়াল্লী ঘোষণার নির্দেশের উপর স্থাগিতাদেশ রয়েছে। ফলে উক্ত ওয়াকফ এস্টেট বা নবাব ওয়াক্ফ এস্টেটেরন নাম ব্যাবহার করার কোনো এখতিয়ার তার নেই এবং জমি লিজ প্রদান করতে পারে না। তাদের প্রচারপত্র বিলি এবং এতে উল্লেখিত শর্তাদি সম্পূর্ণরুপে অবৈধ,বে-আইনি এবং এর উদ্দেশ্য প্রতাররণার মাধ্যমে অর্থ আত্মসাত কৌশল। এতে সাধারণ মানুষ শুধু প্রতারিতই হবে কিন্তু কোন জমি পাবে না এবং কোথাও কোন অভিযোগ করেও প্রতিকার পাবেনা। বিষয়টি গুরুত্বপূর্ণ বিধায় সাধারণ মানুষ এবং প্রশাসনের সুদৃষ্টি কামনায় এ সংবাদ সম্মেলন বলে জানান। বিয়য়টি সকলে সচেতন হবে বলেও বিশ্বস করেন এবং প্রতারণার হাত থেকে রক্ষা পাবে বলে মনে করেন সংবাদ সম্মেলন আয়োজকবৃন্দ।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে